শব্দহীন কবিতা

উম্মে হাবিবা

0
706
bengali kobita
প্রিয়তমেষু,
         পত্রের শুরুতে সবাই ফুলেল শুভেচ্ছা জানায়।তোমার কোন ফুল পছন্দ আমি জানি না তাই সেইটুকু নাই জানান দিলাম।তবে হ্যাঁ,তোমার চরণে আমার কদমবুসি নিও।
   অনেক দিনের ইচ্ছা তোমার চরণে ঠাঁই নিব।তুমি নিতান্তই এক  নির্বেচারা বালক।তোমাকে যত ভাবি ততই অবাক হই।তোমার মনে ঠাঁই চেয়েছি বলে তুমি আমার জানালার পাশ দিয়ে আনাগোনা বন্ধ করে দিলে!এ তোমার কেমন বিচার প্রিয়?তবে বাধ্য হয়ে তোমার চরণে ঠাঁই নিলাম!….
জানো আমার শিউলি ফুল খুব পছন্দ।এই হালকা শীতে আমার শিউলিতলা সাদা ফুলে ছেঁয়ে যায়।ফুল গুলা কেমন যেনো কাব্যিক, যেমনটা ফেনা ফুল।সাদার মধ্যে হালকা বেগুনি আর মধ্যখানে হলুদের কলি!…..আমার ইচ্ছা করে প্রতি সকালে শিউলিফুলের মালা গুঁজে দি আনাড়ি খোঁপায়।আর তুমি আড়াল থেকে আমায় দেখে মুগ্ধ চোখে তাকাও!এতে যেনো আমার ও প্রশান্তি।
          প্রিয়,তুমি এক ধরনের মাদকতা। তোমার যত কাছে যাই ততই ইচ্ছা করে আঁকড়ে ধরি তোমায়।আর যখন দূরে থাকি বারবার তোমার দরজায় কড়া নাড়বো বলে অপেক্ষা করি।
       আচ্ছা তোমার কি কখনো মনে হয় নি তোমার জীবনে কোন আশালতার প্রয়োজন আছে!কেনো তুমি এত অবহেলা করো বলতে পারো!
        তবে কি আমার চাওয়ায় কোন পবিত্রতা নেই!তবে কি আমি পূর্ণতা পাবো না!আমি তোহ তেমন কিছুই চাই নি।শুধু চেয়েছি রোজ সকালে তোমার বাগিচায় ফুটন্ত ফুলগুলোকে স্নান করানোর সময় তোমার পাশে দাঁড়াতে। চেয়েছি মধ্যদুপুরে যখন ক্লান্ত অবশ হয়ে বসবে তখন তোমার সামনে এক মুঠো শান্তি হতে।কিংবা কোন গভীর রাতে তোমার গল্পের নায়িকা হতে!
এ কি তবে অপরাধ আমার প্রিয়?..
প্রিয়,তুমি আমার স্বপ্নের বালক।তোমায় আমি স্বপ্নে সাজাই,ভালোবাসি,আবার ভেঙে নিজ হাতেই গড়ি।
      না,তুমি কোন মূর্তি না।তুমি আমার মনের মন্দিরের এক প্রত্যয়মান ভালোবাসা।যার হাতে আমি একদিকে লাজুকলতা,অন্যদিকে বিষধারিনী।
    প্রিয়, কখনো যদি মন কাঁদে আমার শিউলিতলায় এসে দাঁড়িয়ো।আমি দুই হাত ভরে শিউলিফুলের মালা দিয়ে তোমায় আলিঙ্গন করে নিবো।
                                    ইতি
                            “তোমার ছোঁয়ায় আঁকা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here